জোভান-মেহজাবিনের ‘রং তুলি’

বিনোদন ডেস্ক: আর্ট ইনস্টিটিউটে ক্লাস শেষ। সবাই নিজের মতো গুছিয়ে নিচ্ছে, কেউ চলে যাচ্ছে, কেউ চিত্রের বাকি অংশের কাজ করে যাচ্ছে। নিজের ব্যস্ততায় পারিপার্শ্বিকতা ভুলে কাজ করছিল রং।তুলির ডাকে ধ্যান ভেঙে সম্বিত ফিরে পায় রং। জানতে চায় কেন মেয়েটি তাকে ডেকেছে? মেয়েটি জানায়, সে ক্লাসে নতুন, নিজ চেষ্টায় যদিও সে কিছুটা এগিয়ে নিয়েছে। তবুও রং যদি তাকে সহযোগিতা করে তবে সে রঙের প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবে।

বিরক্তি নিয়ে রং তুলির ক্যানভাসের সামনে এসে দাঁড়ায়। তার আঁকা ছবিটি পর্যবেক্ষণ করে জানিয়ে দেয়, যে চোখে দেখে না সেও এর থেকে ভালো ছবি আঁকতে পারে। এরপর সেখান থেকে চলে যায় রং। এদিকে তুলি নির্বিকারে দাঁড়িয়ে রঙের চলে যাওয়া পথের দিকে তাকিয়ে থাকে।চলতি পথে কিছু বখাটের আক্রমণের শিকার হয় রং। মাথায় আঘাত পেলে জ্ঞানহীন অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হয়।

মাথায় গুরুতর আঘাতের ফলে তার ভিজ্যুয়াল করটেক্স ড্যামেজ হয়ে অন্ধ হয়ে যায়। কিছুদিন পর। বাস্তবতার সাথে চ্যালেঞ্জে নতুন জীবন অভ্যস্ত হতে ব্যর্থ রং। এমন গল্প নিয়েই নির্মিত হয়েছে একক নাটক ‘রং তুলি’।

আপনার মন্তব্য দিন